আসুন, বুদ্ধিবৃত্তিক গেরিলাযুদ্ধে সামিল হই। শুরু করি সাংস্কৃতিক জনযুদ্ধ।

মাস কয়েক আগের কথা। নাজিরহাট বাজারের মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে হালদা খাল। এর উপরে ব্রিটিশ আমলে বানানো একটা লোহার ব্রিজের উপর দিয়ে এখনো সীমিত আকারে যানবাহন ও পায়ে হেঁটে মানুষ চলাচল করে। সেখান হতে একটা চেরাগ কিনে ক্যাম্পাসে ফিরলাম। কেরোসিনের তেল ভরে ও সলতে লাগিয়ে সেটা জ্বালালাম। উদ্দেশ্য, সেটার একটা ছবি তোলা। তুললামও একটা ছবি। দেখলাম, তেমন খারাপ হয় নাই। নেটে ঠিক এ রকম চেরাগের ছবি পাই নাই। এরপর ছবিটা সম্প্রতি চালু করা একটা ইউটিউব চ্যানেলে (channel cheragh) প্রোপিক হিসাবে আপ করেছি।

আইন ও নৈতিকতার বিপরীত অনুপাত সম্পর্কের দিকগুলো নিয়ে গত শুক্রবার চবি সমাজতত্ত্ব বিভাগের তিনজন ছাত্রীর সাথে অনানুষ্ঠানিকভাবে কিছু আলাপ-আলোচনা করেছিলাম। সর্বকাজের ‘কাজী’ সিএসসিএস’এর নির্বাহী পরিচালক জনাব মাসউদুল আলম সেটাকে কিছু ঘষামাজা করে দেয়ার পরে মনে হলো বক্তব্যটা অন‍্যান‍্যদেরও ভালো লাগতে পারে।

ভালো লাগলে চ্যানেলটা সাবস্ক্রাইব করবেন। এই দুইটা আর্টিকেলকে বেইজ ধরে আলোচনাটা করা হয়েছে:

১। হালাল হলেই কি ইসলামিক হবে? ইসলামী নৈতিক চেতনার গুরুত্ব

২। আইন ও নৈতিকতার বিপরীত অনুপাত সম্পর্ক

লেখাটির ফেসবুক লিংক

মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক

নিজেকে একজন জীবনবাদী সমাজকর্মী হিসেবে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিলোসফি পড়িয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। গ্রামের বাড়ি ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম। থাকি চবি ক্যাম্পাসে। নিশিদিন এক অনাবিল ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখি। তাই, স্বপ্নের ফেরি করে বেড়াই। বর্তমানে বেঁচে থাকা এক ভবিষ্যতের নাগরিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *