কারা আছো জীবনবাদী তরতাজা বিপ্লবী?

একদা বিপ্লবীদেরকে দিয়ে
বিপ্লব হয় না।
হবে না তেমন কোনো
কাজের কাজ, অথবা
টেকসই কোনো পরিবর্তন।
বিপ্লবের জন্য,
উন্নয়নের জন্য,
সমাজ পরিবর্তনের জন্য,
চাই হালনাগাদ বিপ্লবী।
বিশ্বাস করি, জানি –
বিপ্লবের জন্য
তেমন কোনো প্রস্তুতি লাগে না।
ওসব আপসে হয়ে যায়।
লাগে শুধু অনড় প্রতিজ্ঞা,
বিপ্লবের জন্য
প্রয়োজন শুধু অদম্য মনোবলের।

সুবোধ ছাপোষা সুখী মানুষেরা
তেমন কিছু করতে পারে না,
আর যাই হোক অন্তত
বিপ্লবী হতে পারে না।
বিপ্লবী হতে চাইলে,
হতে হবে ছন্নছাড়া, পাগল।
নিতান্ত ভালো মানুষদের দিয়ে
বিপ্লব হয় না।
কিছুটা খারাপ,
ছকে বাঁধা সফলতা পেতে
কম-বেশি ব্যর্থ,
কিছুটা ক্ষ্যাপাটে –
এমন ধরনের ‘বেকুব’ লোকেরাই
বিপ্লবী হতে পারে।

যাদের শরীরে আছে
সৃষ্টির অসহ্য তাড়না,
সবার ভালোর জন্য
কিংবা নীতির প্রশ্নে
জীবন নিয়ে জুয়া খেলতে
যারা পছন্দ করে,
প্রয়োজনে নিজেকে
অথবা যে কোনো বাধাকে
গুড়িয়ে দিতে
এতটুকু কুণ্ঠিত নন যারা,
বিপ্লব, তাদের দিয়েই সম্ভব।

একদা ছিলেন আদর্শনিষ্ঠ বিপ্লবী
ইত‍্যাদি অনেক কিছু,
আপনার ওসব সুখস্মৃতি আর
কাগুজে বিপ্লবভাবনা নিয়ে
আপনি থাকেন
আপনার গতানুগতিকতার জগতে।
আপনার সফল জীবন আর
দৃষ্টিনন্দন প্রতিষ্ঠার কাহিনী নিয়ে
আমার বিশেষ কোনো আগ্রহ নাই।
আপনাকে আমার দরকার নাই।
আপনি আর আমি
ভিন্ন পথের যাত্রী, এখন
শুধু পরিচিত।

আমি বিপ্লবী।
‘হয় বিপ্লব, না হয় মৃত্যু’ –
আমি এই নীতিতে বিশ্বাসী।
আমি বিপ্লব করতে চাই,
যেন তা হতেই হবে।
বিপ্লবের স্বপ্ন হলো
আমার বেঁচে থাকার
সবচেয়ে বড় প্রেরণা।
বিপ্লবীদের সাথে থাকতে চাই
শেষ পর্যন্ত, আজীবন।
খুঁজে পেতে চাই
এমন প্রত্যেক ব্যক্তিকে,
যে কিনা
ন‍্যায়, ন‍্যায‍্যতা ও নীতির প্রশ্নে
আপসহীন,
আদর্শের সংগ্রামে পরিণতির ভয়শূন্য,
যে কিনা বেহিসেবি এক
আপদমস্তক বিপ্লবী,
আমৃত্যু যিনি
এক বর্তমান-বিপ্লবী।

বুঝতেই পারছেন,
অতীত-বিপ্লবীদেরকে এড়িয়ে চলি,
দুরে থাকতে চাই তাদের থেকে।
জীবিত থাকতেই চাই না
বিগত-জীবন হতে।
লড়াইয়ের ময়দানে শত্রু যেন
ঠিক খুঁজে পায় আমাকে।

খুঁজে ফিরছি তাই
তরতাজা সব জীবনবাদী
সমাজকর্মী বিপ্লবীদের।
ঠিকানা জানতে চাইছি,
মোর্চা গড়ে তুলতে চাচ্ছি
সব হালনাগাদ বিপ্লবীদের।
কারা আছো এমন তরতাজা
জীবনবাদী বিপ্লবী?

২৫ জানুয়ারি, ২০১৮
দক্ষিণ ক্যাম্পাস, চবি।

১টি মন্তব্য

Leave a Reply